স্বাগতম আপনাকে আন্সলিড ঘুরে দেখার জন্য।
60 জন দেখেছেন
23 জুলাই 2023 "পড়ালেখা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (951 পয়েন্ট)
লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাট সম্পর্কে সংবাদ প্রতিবেদন।

1 টি উত্তর

0 টি ভোট
23 জুলাই 2023 উত্তর প্রদান করেছেন (951 পয়েন্ট)
লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাট, দুর্বিষহ জনজীবন

নিজস্ব প্রদিবেদক, কাজল, প্রথম আলো, রামকৃষ্ণ মিশন রোড, ঢাকা। লোডশেডিং ঢাকা শহরের নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। কিন্তু বর্তমানে গরমের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে লোডশেডিং এর তীব্রতা। ঢাকা শহরে বিদ্যুৎ এই আসে,এই যায়। বিশেষ করে ঢাকার বনশ্রী, মুগদা, মাদারটেক, ডেমরা, যাত্রাবাড়ি, ধানমন্ডি প্রভৃতি কিছু স্থানের চিত্র ভয়াবহ। পুরো দিনে এইসব এলাকায় দশ ঘণ্টাও বিদ্যুৎ থাকে কিনা বলা দুষ্কর। ঢাকা শহরে বিদ্যুৎ সার্বক্ষণিক প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। দিনে বা রাতে যে কোন সময়েই হোক, বিদ্যুতের অনুপস্থিতি আধুনিক জীবনে হাজার সংকট ও সমস্যার সৃষ্টি করে। রাষ্ট্রীয়, সাংস্কৃতিক,অর্থনৈতিক, সামাজিক সকল ক্ষেত্রে প্রতিটি মুহূর্তে বিদ্যুতের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। বিদ্যুৎ ছাড়া কলকারখানা, ব্যবসা-বাণিজ্য, অফিস-আদালত অচল। শিল্প কারখানাগুলোতে প্রতিনিয়ত লোডশেডিং এর ফলে উৎপাদন ব্যবস্থার ক্ষেত্রে পূর্বের তুলনায় আশঙ্কাজনক হারে হ্রাস পেয়েছে।  ছাত্রছাত্রীদের পড়ালেখার নিরন্তর ব্যাঘাত ঘটছে। বিদ্যুৎ না থাকলে সুষ্ঠু পানি সরবরাহ বাধাগ্রস্ত হয়। অনেক সময় লো-ভোল্টেজের কারণে ফ্রিজ, ফ্যান, এসি ইত্যাদি অচল হয়ে যাচ্ছে। কারখানার উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, হাসপাতালের চিকিৎসার ব্যাঘাত ঘটছে। বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে শুধু তৈরি পোশাক খাতেই বাংলাদেশ প্রতিদিন প্রায় ১৬ লাখ ডলার আর্থিক ক্ষতির শিকার হচ্ছে। এ হিসেবে বছরে দেশের মোট ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১৫০০ কোটি টাকা। বিদ্যুৎ সমস্যা ও এর কারণে সৃষ্ট আর্থিক ক্ষতি নিয়ে লেখালেখি কম হয় নি। কিন্তু পরিস্থিতির তেমন কোন উন্নতি হয় নি। এই লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাট বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে। গত ২রা জুলাই বনানীর একটি জনসমাগমে গিয়ে সাধারণ জনগণের সাথে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তারা জানান যে লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে তারা তিক্ত, বিরক্ত ও অতিষ্ঠ। তারা ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ চাহিদার সঙ্গে পর্যাপ্ত হারে বিদ্যুৎ উৎপাদন না হওয়া, কারিগরি অদক্ষতা, অবহেল ও বহু পুরনোযন্ত্র ও সরঞ্জামের আবশ্যিক সংস্কারের কাজের ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের অক্ষমতা, সরকারের টালবাহানা নীতি ও সময়মতো বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিকে নজর না দেওয়া, বিদ্যুৎ খাতে দুর্বল প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা ও প্রশাসনিক জটিলতা, প্রয়োজনীয় কাঁচামাল ও উচ্চমানের কয়লা সরবরাহের অভাব ইত্যাদি লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন।  এই চিত্র শুধু বনানীতেই নয়, সারা ঢাকায়। আর ঢাকার বাইরে সারা দেশে অবস্থা আরো শোচনীয়। এছাড়াও সংকটের পেছনে বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট সংস্থাটির এক শ্রেণির কর্মকর্তাদের চরম দুর্নীতির ব্যাপারও কম দায়ী নয়। একই দিনে ডেসা’র (Dhaka Electric Supply Authority) ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তার সাথে কথা বলে জানা যায় যে, এক শ্রেণির কর্মীদের সহায়তায় চলছে বিদ্যুৎ চুরির মহোৎসব। দুর্নীতিবাজ কর্মী ও গ্রাহকের যোগসাজশে মাসে অন্তত ৬ কোটি ইউনিট বা গড়পড়তায় ১৫ কোটি টাকার বিদ্যুৎ চুরি হচ্ছে। বিদ্যুতের অভাবে যেখানে মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে, সেখানে এ ধরনের চুরিকে প্রশ্রয় দেওয়া কোনভাবে মেনে নেওয়া যায় না। এ ব্যাপারে সরকারের কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের সময় এসে গেছে। তবে আমাদের মতো ঘনবসতিপূর্ণ দেশে সরকারের একার পক্ষে এ অবস্থার উন্নতি সম্ভব নয়। তাই জনগণেরও বিদ্যুৎ ব্যবহারের ব্যাপারে সতর্কতা ও সচেতনাতার পরিচয় দিতে হবে এবং বিদ্যুৎ অপচয় রোধ করতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালাতে হবে। তাহলে হয়তোবা জনগণের এই দুর্ভোগের অবসান ঘটবে।
[প্রতিবেদনের শিরোনাম      : লোডশেডিং ও বিদ্যুৎ বিভ্রাট, দুর্বিষহ জনজীবন
প্রতিবেদকের নাম ও ঠিকানা: কাজল, রামকৃষ্ণ মিশন রোড, ঢাকা।
প্রতিবেদন তৈরির স্থান       : বনানী এবং ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড।
প্রতিবেদন তৈরির তারিখ     : 4রা জুলাই, ২০২১]

বি: দ্র:

ব্র‍্যাকেটের অংশটুকু খাম এঁকে খামের ভিতরে লিখতে হবে।

সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

1 টি উত্তর 47 জন দেখেছেন
1 টি উত্তর 84 জন দেখেছেন

আন্সলিড এ সুস্বাগতম, যেখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং গোষ্ঠীর অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন।

1.1k টি প্রশ্ন

1.1k টি উত্তর

2 টি মন্তব্য

35 জন সদস্য

1 Online Users
0 Member 1 Guest
Today Visits : 852
Yesterday Visits : 1742
Total Visits : 263143
...